" /> অনলাইন জুয়ার সাথে জড়িত চারজন গ্রেপ্তার - নাগরিক দৃষ্টি টেলিভিশন
শুক্রবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২৩, ১০:২২ অপরাহ্ন
নিউজ বোর্ড :
বিএনপির সর্বনাশ হচ্ছে,তারেক রহমানের কারণে: আখতারুজ্জামান আরও ৯৩ জনের আবেদন, প্রার্থিতা ফিরে পেতে সুনামি সতর্কতা,ভানুয়াতুতে ৭.১ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্প ডেনমার্ক পবিত্র কোরআন পোড়ানো নিষিদ্ধ করল আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপজয়ী কোচ পদত্যাগের গুঞ্জনে যা বললেন বাংলাদেশ সিরিজ জয়ের লক্ষ্যে রাতে মাঠে নামছে তেজগাঁওয়ে ক্রেনের আঘাতে ট্রেন লাইনচ্যুত বৃষ্টির মধ্যে রাজধানীতে দুই বাসে আগুন পুতিনকে জিততে দিতে চান না বাইডেন রাশিয়ায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ১৭ মার্চ পাঁচ নারী পাচ্ছেন বেগম রোকেয়া পদক ৩৩৮ থানার ওসি বদলির অনুমোদন আচরণবিধি ভঙ্গের অভিযোগে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মাহফুজুরের কাছে ব্যাখ্যা তলব মির্জা ফখররুলকে কেন জামিন নয়: হাইকোর্ট পান্নুন হত্যা : ভারতে আসছেন এফবিআইয়ের পরিচালক নওয়াজ-সুজাত বৈঠক, আসন ভাগাভাগির পরিকল্পনা পিটার হাসের বিরুদ্ধে রাশিয়ার অভিযোগ সত্য নয় যুক্তরাষ্ট্র পেলে-নেইমারের ক্লাব সান্তোসের প্রথম অবনমন ১১১ বছরের ইতিহাস রুবিয়ালেস কী ইংল্যান্ডের নারী ফুটবলারকেও জোর করে চুমু খেয়েছিলেন ? ইসি আলমগীর বলেছেন, নির্বাচনের বিষয়ে বিদেশিদের চাপ দেওয়ার অধিকার নেই

অনলাইন জুয়ার সাথে জড়িত চারজন গ্রেপ্তার

Untitled33444

5 / 100

নিজস্ব প্রতিবেদক,
অনলাইন জুয়ার সাথে জড়িত চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (,সিআইডি)। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন-মো. মাহবুব আলম, লোকমান হোসেন ওরফে রায়হান, মো.হাসিবুুর রহমান ও মো. সুমন আলী।
বুধবার সন্ধ্যায় সিআইডির সদর দপ্তর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

সিআইডির ভাষ্য, সাইবার পুলিশ সেন্টার প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বাংলাদেশের সাইবার স্পেসে সংঘটিত যেকোন অপরাধ নির্মূল ও প্রতিরোধ করার লক্ষ্যে নিয়মিতভাবে সাইবার পেট্রোলিং ও মনিটরিং করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করে থাকে। মামলা তদন্ত ও সাইবার পুলিশ সেন্টারের নিয়মিত মনিটরিংকালে অনলাইন প্লাটফর্ম 1xBet নামের বেটিং সাইটসহ অন্যান্য বেশ কয়েকটি বেটিং সাইটে নিয়মিত নজর রাখছে সাইবার পুলিশ সেন্টার। এ সকল বেটিং সাইটে অনলাইনে বাংলাদেশের প্রচুর গ্রাহককে নিয়ে বেটিং বা জুয়া খেলা হচ্ছে। বিশেষ করে গ্রামাঞ্চলের স্বল্প শিক্ষিত মানুষ এবং শিশু কিশোরদের মাঝে এই প্রবণতা আশংকাজনকভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে। 1xBet, Mostbet, Betwinner, Melbet অনলাইন ক্যাসিনো, লুডুসহ বিভিন্ন ফর্মেটে চলছে জুয়া খেলা। এই অনলাইন জুয়া প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণের জন্য সাইবার ইন্টেলিজেন্স এন্ড রিস্ক ম্যানেজমেন্ট, সাইবার পুলিশ সেন্টার, সিআইডি, ঢাকা নিয়মিত মনিটরিং এবং অভিযান কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এই অভিযান কার্যক্রমের ধারাবাহিকতায় অনলাইন জুয়ার সাথে জড়িত থাকার অপরাধে মো. মাহবুবুল আলম , লোকমান হোসেন ওরফে রায়হান , মো.হাসিবুর রহমান এবং মো: সুমন আলী নামের চারজনকে গ্রেপ্তার করে সিআইডি ।
চলতি বছরের জুলাই মাসে অনলাইন বেটিং সাইট 1xBet সংক্রান্তে অভিযানে ১০ জনকে গ্রেপ্তার করে সিআইডির সাইবার পুলিশ সেন্টারের সাইবার ইন্টেলিজেন্স এন্ড রিস্ক ম্যানেজমেন্ট শাখার একটি টিম। গ্রেপ্তরকৃত ১০ জনসহ অজ্ঞাতনামা ৪০/৫০ জনের বিরুদ্ধে পল্টন মডেল (ডিএমপি) থানার মামলা নং-২৭, তারিখ-১৮/০৭/২০২৩ ইং, ধারাঃ ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, ২০১৮ এর ২৩(২)/২৪(২)/২৫(২)/৩০(২)/৩১(২)/৩৫(২) করা হয়।

মামলাটি বর্তমানে সাইবার পুলিশ সেন্টারে তদন্তাধীন আছে। এই সংক্রান্তে বিভিন্ন তথ্য উপাত্ত এনালাইসিস করে সিআইডি সাইবার ইন্টেলিজেন্স অ্যান্ড রিস্ক ম্যানেজমেন্ট-এর একটি টিম গত সোমবার কুমিল্লা জেলা ও ঢাকার যাত্রাবাড়ী থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।
সিআইডি বলছে, 1xBet সহ বাংলাদেশে প্রচলিত যতগুলো বেটিং সাইট রয়েছে তার বেশিরভাগই মূলত রাশিয়া থেকে নিয়ন্ত্রণ করা হয়। বিভিন্ন দেশে স্থানীয়ভাবে নিয়ন্ত্রণের জন্য ম্যানেজার নিয়োগ করা হয়। ম্যানেজার বাংলাদেশে জুয়ার এজেন্ট হিসাবে বিশ্বস্তদের নিয়োগ দেয়। জুয়ার এজেন্ট গন এ সমস্ত অ্যাপস পরিচালনা করতে পারে টেকনিক্যালি দক্ষ এমন লোক রাখেন। গ্রেপ্তারকৃত মো. হাসিবুর রহমান এবং মো: সুমন আলীর গ্রামের বাড়ী মেহেরপুর জেলায়। 1xBet এর অন্যতম একজন বাংলাদেশী এজেন্ট হচ্ছে মেহেরপুরের সাদ্দাম নামের এক ব্যক্তি। সাদ্দামের জুয়ার এজেন্ট এর কার্যক্রম পরিচালনার জন্য সে গ্রেফতারকৃত মো. হাসিবুর রহমান এবং মোঃ সুমন আলীকে নিয়োগ করে। পুলিশের চোখ কে ফাকি দিতে এবং গ্রেপ্তার এড়াতে সাদ্দাম ঢাকার যাত্রাবাড়ী এলাকায় বাসা ভাড়া করে দেয় হাসিবুর ও সুমনকে।মেহেরপুরসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলা থেকে এমএফএস এজেন্ট সিম সংগ্রহ করে পেয়াজ ব্যবসায়ী পরিচয় ধারন করে গোপনে ঢাকায় বসে এই কাজ করছে এই চক্র। কিন্তু শেষ রক্ষা হলো না। সাইবার পুলিশ সেন্টারের চৌকশ টিমের হাতে ধরা পরতে হলো তাদের। পলাতক সাদ্দামসহ এই চক্রের অন্যান্য সদস্যদের গ্রেপ্তারে তৎপর রয়েছে সিআইডি। জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় অনলাইন জুয়া 1xBet এর মাধ্যমে এই চক্র প্রতিমাসে গড়ে তিন কোটি টাকা দেশের বাইরে পাচার করেছে।

গ্রেপ্তারকৃত মো. মাহবুবুল আলম তার চাচা আনোয়ার এবং অন্যান্য প্রতিবেশিদের নামে এমএফএস এজেন্ট সিম সংগ্রহ করে অনলাইন জুয়া 1xBet এর ব্যবসা পরিচালনা করছিলো। এই কাজে তাকে এমএফএস এজেন্ট সিম সরবরাহ এবং লেনদেনে সহায়তা করেছে গ্রেপ্তারকৃত অপর আসামী লোকমান হোসেন ওরফে রায়হান । সে একটি এমএফএস হাউজের ডিস্ট্রিবিউটর সেলস অফিসার (ডিএসও)। কুমিল্লার মাহবুবুল আলমের চক্র অনলাইন জুয়া 1xBet এর মাধ্যমে প্রতিমাসে গড়ে নয় কোটি টাকা দেশের বাইরে পাচার করেছে বলে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমরা

aticlix.net