" /> শাহীন কলেজের সামনের ফুটওভার ব্রীজে এস্কেলেটর বসানো হবে: মেয়র আতিকুল – নাগরিক দৃষ্টি টেলিভিশন
মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৩, ০২:২৫ পূর্বাহ্ন

শাহীন কলেজের সামনের ফুটওভার ব্রীজে এস্কেলেটর বসানো হবে: মেয়র আতিকুল

WhatsApp Image 2022 12 25 at 17.46.30 min

10 / 100

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ শিক্ষার্থী ও পথচারীদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে রাজধানীর তেঁজগাওয়ে বিএএফ শাহীন কলেজ সংলগ্ন ফুটওভার ব্রীজে বসবে অত্যাধুনিক এস্কেলেটর (চলন্ত সিঁড়ি)।

রবিবার (২৫ ডিসেম্বর) দুপুরে রাজধানীর বিএএফ শাহিন কলেজ মাঠে এক্স শাহীন এসোসিয়েশন অব ঢাকা (ইসাড) এর পুনর্মিলনী-২০২২ অনুষ্ঠানে বক্তব্য প্রদানকালে ইসাড এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মোঃ আতিকুল ইসলাম এ কথা বলেন।

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, ‘কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বলেছেন, বিদ্যা অর্জন সহজ, কিন্তু শিক্ষা অর্জন করা সহজ নয়। এখান থেকে আমরা সে ‘শিক্ষা’ অর্জন করেছি। বড়দের শ্রদ্ধা করা, ছোটদের ভালবাসার যে শিক্ষা সেটি পেয়েছি। আমরা যেমন বিদ্যা অর্জন করেছি, তেমনি শিক্ষাও পেয়েছি। শাহীন স্কুল আমাকে আজকের অবস্থানে আসতে সাহায্য করেছি।

e4645yrtfshyudx min

মেয়র আরও বলেন, ‘আমি নিজেও গর্বিত শাহীন। ঢাকায় যতগুলো কলেজ আছে, তারমধ্যে শাহীন কলেজ অন্যতম। শাহিন কলেজে রয়েছে বড় খেলার মাঠ। এখানে ক্রিকেট, ফুটবল ও ভলিবলসহ বিভিন্ন খেলার সুযোগ রয়েছে। আমরা গর্ববোধ করি। এই প্রতিষ্ঠান পড়ালেখার পাশাপাশি আমাদের শিখিয়েছে বড়দের শ্রদ্ধা করা, মানুষের বিপদে পাশে দাঁড়ানো। এই প্রতিষ্ঠানের ঋণ শোধ করা সম্ভব না। আজকে আমি ঢাকা উত্তরের মেয়র। শাহিন কলেজই আমার ফাউন্ডেশন তৈরি করে দিয়েছে।’

মোঃ আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘এই কলেজের মাঠ আমাকে ডাকে, ক্লাস রুম আমাকে এখনো ডাকে। বঙ্গবন্ধুর জেষ্ঠ্য পুত্র শহীদ শেখ কামাল এই প্রতিষ্ঠানের ছাত্র ছিলেন। শেখ কামাল এই মাঠে খেলাধুলা করেছেন, এই ক্যাম্পাসে দলবেধে ঘুরে বেড়িয়েছেন। তার স্মৃতি আমাদের অনুপ্রেরণা, আমাদের শক্তি।’

এসময় শহীদ শেখ কামালের নামে কলেজের ভবনের নামকরণের জন্য আহবান করে ডিএনসিসি মেয়র বলেন, ‘আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে সঠিক ইতিহাস জানাতে হবে। শেখ কামালের নামে ভবন ও লাইব্রেরীর নামকরণ হলে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম তাঁর সম্পর্কে জানতে পারবে।’

WhatsApp Image 2022 12 25 at 17.46.28 min

তিনি বলেন, ‘ইসাড এর পক্ষ থেকে একটা ল্যাবেরটরি করে দিয়েছি, ৪র্থ শ্রেণির কর্মচারীদের প্যান্ডেমিক চলাকালীন খাবার নিশ্চিত করেছি। ইসাড এর মেম্বারদের মধ্যে যদি কেউ মারা যায়, তাদের সন্তানদের আমরা সহায়তা দিয়ে আসছি।’

তিনি বলেন, ২০১৭ সালে আমরা বলেছি, আমরা শাহীন ক্লাব করেছি। এবং এটি বাস্তবে পরিণত করেছি। ক্লাবটা করা হয়েছে যারা বিভিন্ন শাহীন স্কুল থেকে পড়াশোনা করেছি, সব শাহীন স্কুলের শিক্ষার্থীরাও এই ক্লাবের মেম্বার হবে। এছাড়া, গ্রুপ ক্যাপ্টেন এবং এভোব যারা হবে তারা শাহীন কলেজের সম্মানিত সদস্য হবেন।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ বিমানবাহিনী প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল শেখ আব্দুল হান্নান বলেন, বিএএফ শাহীন কলেজের গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল জাহিদুর রহমান, ইসাড এর প্রাক্তন সভাপতি ও উপদেষ্টা জিয়া শামসি, বিএএফ শাহীন কলেজের প্রিন্সিপাল গ্রুপ ক্যাপ্টেন এ কে এম আব্দুর রাজ্জাক।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমরা