" /> অনলাইন প্লাটফর্মে লাইভ পর্ণ ভিডিও স্ট্রীমিং প্রতারণা; তিন মাসে ৩০ কোটি টাকার অবৈধ লেনদেন – নাগরিক দৃষ্টি টেলিভিশন
শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৫:৫৩ পূর্বাহ্ন

অনলাইন প্লাটফর্মে লাইভ পর্ণ ভিডিও স্ট্রীমিং প্রতারণা; তিন মাসে ৩০ কোটি টাকার অবৈধ লেনদেন

image 223148 1671098065bdjournal

8 / 100

নিজস্ব প্রতিবেদক: তিন মাসে ৩০ কোটি টাকার অবৈধ লেনদেন করেছে অনলাইন প্লাটফর্মে লাইভ পর্ণ ভিডিও স্ট্রীমিং প্রতারণাকারী চক্র।

এই চক্রটি তাদের অন্যান্য সহযোগীদের সহায়তায় বাংলাদেশে অননুমোদিত ভার্চুয়াল ডায়মন্ড ও ভার্চুয়াল গেম কয়েন অবৈধ ই-ট্রানজেকশনের মাধ্যমে বিপুল পরিমান অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে।


বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান ডিএমপির কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ইউনিটের (সিটিটিসি) অতিরিক্ত কমিশনার মো. আসাদুজ্জামান।


এরআগে অনলাইন প্লাটফর্মে লাইভ পর্ণ ভিডিও স্ট্রীমিং প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ আত্মসাৎ ও পাচারকারী চক্রের মূলহোতাসহ ছয়জনকে গ্রেপ্তার করেছে সিটিটিসির একটি দল। বুধবার রাজধানী ঢাকা ও দেশের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন-আবু মুসা ইমরান আহমেদ সানি, মো. আবু শামা, ফাতেমা আক্তার, শায়লা আক্তার, শাহ আরমান এবং মো. সেলিম। এ সময় তাদের কাছ থেকে ১১ টি মোবাইল ফোন, ১৭ টি সিম কার্ড, দুইটি ল্যাপটপ, বিভিন্ন ব্যাংকের চেকবই, ডেভিট কার্ড-ক্রেডিট কার্ড উদ্ধার করা হয়।


সংবাদ সম্মেলনে আসাদুজ্জামান বলেন, বাংলাদেশ সরকারের কঠোর পদক্ষেপের ফলে অনলাইন প্লাটফর্মে অশ্লীলতা ও পর্ণ সাইট একের পর এক বন্ধ করা হলেও সাইবার অপরাধীরা নিত্য নতুন কৌশলের মাধ্যমে তাদের অপরাধ কার্যক্রম চলমান রেখেছে। বাংলাদেশে নব্য পর্ণ ব্যবসা কৌশল হিসেবে অনলাইন প্লাটফর্মে লাইভ পর্ণ ভিডিও স্ট্রীমিং পরিচালনা করে প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ আত্মসাৎ ও বিদেশে অবৈধভাবে পাচার করে আসছে। অনলাইন প্লাটফর্মে অপরাধ প্রবনতা নিরসনে কাউন্টার টেরোরিজম ও সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন বিভাগ নিয়মিত সাইবার পেট্রোলিং এর মাধ্যমে একটি আন্তর্জাতিক ভিডিও লাইভ প্লাটফর্ম এর মোবাইল এপ্লিকেশন উজঊঅগ খওঠঊ এর অনৈতিক কর্মকান্ড সম্পর্কে জানতে পারে।

পরবর্তীতে ব্যাপক অনুসন্ধান ও অনলাইন তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে বাংলাদেশে এই অনলাইন মোবাইল এপ্লিকেশন সাইটটির মূলহোতা আবু মুসা ইমরান আহমেদ সানি ও তার সহযোগীদের সনাক্ত করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত আবু মুসা ইমরান আহমেদ সানি সারা বাংলাদেশে ১২০ টির অধিক এজিন্সির মাধ্যমে ভিডিও লাইভ স্ট্রীমিং সাইটটি পরিচালনা করে। আবু মুসা ইমরান আহমেদ সানি ও তার অন্যান্য সহযোগীদের সহায়তায় বাংলাদেশে অননুমোদিত ভার্চুয়াল ডায়মন্ড ও ভার্চুয়াল গেম কয়েন অবৈধ ই-ট্রানজেকশনের মাধ্যমে বিপুল পরিমান অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে। আবু মুসা ইমরান আহমেদ সানির ব্যাংক ও মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস এ্যাকাউন্ট স্ট্যাটমেন্ট পর্যালোচনায় গত ৩ মাসে প্রায় ৩০ কোটি টাকা অবৈধ লেনদেনের তথ্য পাওয়া যায়।


সংবাদ সম্মেলনে সিটিটিসির অতিরিক্ত কমিশনার বলেন, আবু মুসা ইমরান আহমেদ সানি ও তার অন্যান্য সহযোগীরা পরষ্পরের যোগসাজসে অনলাইন প্লাটফর্মে লাইভ পর্ণ ভিডিও স্ট্রীমিং সাইট পরিচালনা করে প্রতারণার মাধ্যমে বিপুল পরিমান অর্থ আত্মসাৎ ও বিদেশে অবৈধভাবে পাচার করার কথা স্বীকার করেছে। তাদের বিরুদ্ধে ডিএমপি’র রমনা থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা করা হয়েছে।


ডিএমপির সিটিটিসি’র সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন বিভাগের উপকমিশনার আ ফ ম আল কিবরিয়ার সার্বিক দিকনির্দেশনায় অতিরিক্ত উপ কমিশনার মো. নাজমুল ইসলাম ও অতিরিক্ত উপ কমিশনার মো. অহসান হাবিবের তত্ত্বাবধানে কাউন্টার টেরোরিজম ইনভেস্টিগেশন টিমের সহকারী পুলিশ কমিশনার মো. আরিফুল হোসেন তুহিনের নেতৃত্বে অভিযানটি পরিচালিত হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমরা