" /> বিএনপিকে সমাবেশের জন্য সোহরাওয়ার্দী উদ্যানেই যেতে হবে: মায়া – নাগরিক দৃষ্টি টেলিভিশন
শনিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৩, ০৯:৫২ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদ
খালেদা, তারেককে নিয়ে সময় টিভির প্রতিবেদন সম্পর্কে যা বললেন ফখরুল বিদ্যুতের দাম প্রতি মাসেই সমন্বয় করা হবে : প্রতিমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী বিশ্বব্যাপী উচ্চশিক্ষার সুযোগ তৈরি করে দিয়েছেন : নাছিম বিআইডব্লিউটিএ’র অনুমোদন ছাড়া কোনো সেতু নয় : নৌ প্রতিমন্ত্রী সিলেটে আন্তর্জাতিক কাস্টমস দিবস- ২০২৩ উদযাপন সাংবাদিক আফতাব হত্যা : ৯ বছর ছদ্মবেশে ফাঁসির আসামি, অবশেষে গ্রেপ্তার বিদ্যার দেবী শ্রী শ্রী সরস্বতী পূজা সাংবাদিক আফতাব হত্যা : ৯ বছর ছদ্মবেশে ফাঁসির আসামি, অবশেষে গ্রেপ্তার বার বার আদালতে আনা নেয়ায় অসুস্থ হয়েছেন রিজভী : ইউট্যাব ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ গড়ার মূল হাতিয়ার হবে ডিজিটাল সংযোগ : প্রধানমন্ত্রী

বিএনপিকে সমাবেশের জন্য সোহরাওয়ার্দী উদ্যানেই যেতে হবে: মায়া

20221207 125838 68480ed9c089c4286ac0c3f57015d0e8

8 / 100

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া (বীর বিক্রম) বলেছেন, বিএনপিকে সমাবেশ করতে হলে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানেই যেতে হবে। এছাড়া কোনো উপায় নেই। রাস্তাঘাটে মিটিং করে মানুষের জানমালের ক্ষতি করলে, বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করলে, আমরা হাতে চুড়ি পরে বসে থাকব না।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবে ঢাকাস্থ চাঁদপুর জেলা মুক্তিযোদ্ধা পরিষদ আয়োজিত চাঁদপুর জেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ওচমান গনি পাটওয়ারীর সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

মায়া বলেন, বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে আজ প্রায় ৫০ বছর। এরমধ্যে স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় ছিল মাত্র সাড়ে ২২ বছর। বাকি ২৮-২৯ বছর ক্ষমতায় ছিল স্বাধীনতার বিপক্ষের শক্তি। এরা পাকিস্তানের প্রেতাত্মা। এই ২৯ বছর অনেক মুক্তিযোদ্ধাকে লাঞ্ছিত করা হয়েছে, জেলে পাঠানো হয়েছে।

বিএনপি মুক্তিযুদ্ধের রক্তে ভেজা পতাকা নিচে নামিয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, অতীতে রাজাকার, আলবদর, আল শামসদের গাড়ি-বাড়িতে তারা বাংলাদেশের পতাকা তুলে দিয়েছে। এখন যত সন্ত্রাসী আছে, তাদের হাতে বাঁশের মাথায় জাতীয় পতাকা বেঁধে দিয়েছে।

১০ ডিসেম্বর নেতাকর্মীদের রাজপথে থাকার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আমরা ১০ তারিখ পাড়া মহল্লায় পাহারা দিব। কারণ বিএনপির নেতাকর্মীদের অভ্যাস খারাপ। তাদের হাত দুটো পকেটে থাকে না, বাইরে থাকে। তারা কোন জায়গায় মানুষের দোকানপাটে হাত দেয়, সেজন্য মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে। ১০ তারিখ সারাদিন রাজপথে থাকব। জনগণের জানমাল রক্ষার্থে তাদের পাশে থাকবো। এতে কোনো অপরাধ নেই।

মায়া বলেন, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, তাদের দলের চেয়ারম্যান খালেদা জিয়া বাংলাদেশের প্রথম নারী মুক্তিযোদ্ধা। তারেক রহমান শিশু মুক্তিযোদ্ধা। এত বড় রাজনৈতিক দলের নেতা এভাবে যদি ইতিহাস বিকৃত করে, তাহলে এদেশের অবস্থা কী হবে? তাদের হাতে যদি ক্ষমতা যায়, তারা কী করবে বলতে পারেন? এদের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করতে হবে, ইতিহাস রক্ষা করতে হবে। তার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। নেতাকর্মীরা সজাগ থাকবেন। মুক্তিযোদ্ধাদের পবিত্র দায়িত্ব দেশ ও মানুষের জানমাল রক্ষা করা।

ঢাকাস্থ চাঁদপুর জেলা মুক্তিযোদ্ধা পরিষদের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মিঞা মো. জাহাঙ্গীল আলমের সভাপতিত্বে এতে আরও উপস্থিত ছিলেন এমপি মুহাম্মদ শফিকুর রহমান, ঢাকাস্থ চাঁদপুর জেলা মুক্তিযোদ্ধা পরিষদের উপদেষ্টা মো. মমিন উল্লাহ পাটোয়ারী বীর প্রতীক, বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাড. মো. তাহের হোসেন ভূঁইয়া প্রমুখ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমরা