" /> ব্রাজিলের কোয়ার্টার ফাইনালের পথে বাধা দ. কোরিয়া – নাগরিক দৃষ্টি টেলিভিশন
শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৭:৩৩ পূর্বাহ্ন

ব্রাজিলের কোয়ার্টার ফাইনালের পথে বাধা দ. কোরিয়া

711107 132

8 / 100

কাতারের রাজধানী দোহার স্টেডিয়াম ৯৭৪-এ আজ সোমবার কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠার লক্ষ্যে মুখোমুখি হবে ব্রাজিল ও দক্ষিণ কোরিয়া। চোট থেকে ফিরে আজ মাঠে নামতে পারেন নেইমার। সোশ্যাল মিডিয়াতেও অনুশীলনের ছবি পোস্ট করেছেন এই ব্রাজিলিয়ান তারকা।

বিশ্বকাপে ‘জি’ গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন হয়ে শেষ ষোল নিশ্চিত করেছে ব্রাজিল। নিজেদের প্রথম ম্যাচে সার্বিয়ার বিরুদ্ধে ২-০ গোলে জিতেছিল দলটি। সেই ম্যাচেই গোড়ালিতে চোট লাগে নেইমারের। এরপর সুইজারল্যান্ডের বিরুদ্ধে নেইমারকে ছাড়াই ১-০ গোলে জেতে দলটি। শেষ ম্যাচে শনিবার ক্যামেরুনের বিরুদ্ধে ১-০ গোলে হেরেছে ব্রাজিল। নিয়মরক্ষার সেই ম্যাচে একাদশে মূল খেলোয়াড়দের অনেককেই খেলাননি সেদিন।

বিপরীতে ‘এইচ’ গ্রুপ থেকে দ্বিতীয় হয় নক আউট পর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে দক্ষিণ কোরিয়া। এবারের বিশ্বকাপে এশিয়ার দলগুলো বেশ ভালো করছে। জাপান এবং দক্ষিণ কোরিয়া জায়গা করে নিয়েছে নকআউট পর্বে। দক্ষিণ কোরিয়া এক রকম চমক বিশ্ববাসীর জন্য। গ্রুপপর্বে তারা উরুগুয়ের সাথে গোলশূন্য ড্র করেছে ও পর্তুগালকে ২-১ গোলে হারিয়েছে। ১২ বছর পর নক আউট পর্বে খেলছে দক্ষিণ কোরিয়া।

এর আগে বিশ্বকাপের মঞ্চে কখনোই মুখোমুখি হয়নি ব্রাজিল ও দক্ষিণ কোরিয়া। এবার তারা লড়বে নক আউট পর্বে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিতের লড়াইয়ে।

আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে দুই দলের একে অপরের সাথে দেখা হয়েছে সাতবার। এর মধ্যে ব্রাজিল জয় পেয়েছে ছয় ম্যাচে। বিপরীতে এশিয়ান দলটির একমাত্র জয় ২৩ বছর আগে, ১৯৯৯ সালে। দুই দলের সর্বশেষ দেখা হয়েছিল চলতি বছরের জুনে। সেই প্রীতি ম্যাচে দক্ষিণ কোরিয়াকে ৫-১ গোলের ব্যবধানে হারিয়েছিল সেলেসাওরা। সব মিলিয়ে সাত ম্যাচে দক্ষিণ কোরিয়ার পাঁচ গোলের বিপরীতে ব্রাজিল দিয়েছে ১৬ গোল।

সর্বশেষ ২০ বছর আগে ২০০২ বিশ্বকাপে শিরোপা উঁচিয়ে ধরেছিল ব্রাজিল। সেইবার বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ ছিল জাপান-দক্ষিণ কোরিয়া। ২০০২ বিশ্বকাপে সেমিফাইনাল পর্যন্ত খেলেছিল দক্ষিণ কোরিয়া। বিশ্বকাপের আসরে এখন পর্যন্ত এশিয়ার কোনো দলের এটাই সর্বোচ্চ সাফল্য।

ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে থাকা ব্রাজিল এবারের বিশ্বকাপে এসেছে তাদের ষষ্ঠ বিশ্বকাপ ট্রফি জিতে হেক্সা মিশন পূরণ করতে। অন্যদিকে দক্ষিণ কোরিয়ার তারকা ফুটবলার ও দলের সবচেয়ে ভরসাযোগ্য নাম হিউং মিন সন। ব্রাজিলের স্বপ্ন নষ্ট করে নিজেদের বিশ্বকাপ মিশন অব্যাহত রাখতে প্রস্তুত দক্ষিণ কোরিয়া। যদিও ধারেভারে ও অভিজ্ঞতায় এগিয়ে থাকা ব্রাজিলই এই ম্যাচের ফেভারিট।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমরা