শুক্রবার, ১৯ অগাস্ট ২০২২, ১০:০৩ পূর্বাহ্ন
নিউজ বোর্ড :
কাবুলে মসজিদে মাগরিবের নামাজে বিস্ফোরণ, নিহত ২০ মস্কো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে যুবরাজ যাচ্ছেন ‘আদিম’ নিয়ে ইরানি পরিচালকের মামলার বিষয়ে জানি না: অনন্ত জলিল বাড়ছে হলের সংখ্যা,‘পরাণ’ মুক্তির ৩৯ দিনেও ‘অ্যাডভেঞ্চার অব সুন্দরবন’পরীমনি অভিনীত সরকারী অনুদানে সিনেমার মুক্তি পেছাল ভক্তরা যা করলেন শাকিব খানের জন্য কিছুটা স্বস্তি ডলারের বাজারে নাসা নতুন রকেট পাঠাচ্ছে চাঁদে বিশ্ববাজারে বেশিরভাগ পণ্যের দাম কমেছে ভরিতে ২২৭৫ টাকা কমছে স্বর্ণের দাম বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন চীনে ,তীব্র তাপপ্রবাহের মধ্যে লাখ লাখ মানুষ চীন সেনা পাঠাচ্ছে রাশিয়ায় মাত্র ১৫ শতাংশ,৩২০০ কোটি টাকায় টিভি স্বত্ব,বিক্রি করল বার্সেলোনা চমকে যাবেন,মেসি-রোনালদোর আয় জানলে,শুধু ইনস্টাগ্রাম থেকে জাসদের দাবি দোষীদের শাস্তি – স্বাধীনতাবিরোধী, দেশবিরোধী অপশক্তি, জঙ্গিগোষ্ঠী লাভবান না হয় সে বিবেচনার অনুরোধ : তথ্যমন্ত্রী ৩ মাসে দেশ পরিবর্তন,খালেদা জিয়ার জামিন হলে: জাফরুল্লাহ চা শ্রমিকদের মজুরি দেন,হুমকি নয় : টিআইবি আজ সিরিজ বোমা হামলার ১৭ বছর গুতেরেস ও এরদোয়ান ইউক্রেন যাচ্ছেন
নোটিশ বোর্ড :
জরুরি ঘোষণাঃ আমাদের আই টি বিভাগের কারিগরি উন্নয়ন এর কাজ চলছে! এতে প্রচারে বিঘ্ন ঘটতে পারে সাময়িক অসুবিধার জন্য দুঃখিত। #Ndtvbdnewsroom “জরুরী আবশ্যক”বেসরকারী অনলাইন টেলিভিশন চ্যানেল ” নাগরিক দৃষ্টি টেলিভিশন ” এনডিটিভি তে এ উপস্থাপক উপস্থাপিকা, ভয়েস আটির্স,অফিস সহকারী পুরুষ – মহিলা এসএসসি,এইচএসসি,স্নাতক,ছবি সহ আবেদন করতে হবে এই মেইলে hr@ndtvbd.com * পরিক্ষামুলক সস্প্রচার * পরিক্ষামুলক সস্প্রচার * নাগরিক সাংবাদিকতার পথে ,আপনি হতে পারেন নাগরিক সাংবাদিক, দেরি না করে এখনি পাঠিয়ে দিন আপনার ছবি সহ বায়োডাটা এই মেইলে hr@ndtvbd.com, আপনারা যদি কোন সংবাদ বা নিউজ ক্লিপ পাঠাতে চান তাহলে এই মেইলে পাঠাতে পারেন news@ndtvbd.com– Head Of News–* পরিক্ষামুলক সস্প্রচার * পরিক্ষামুলক সস্প্রচার * পরিক্ষামুলক সস্প্রচার * পরিক্ষামুলক সস্প্রচার * পরিক্ষামুলক সস্প্রচার

শ্রীলঙ্কা কেমন হবে নতুন নেতার অধীনে এএফপির বিশ্লেষণ

download 3 1

10 / 100

বর্তমানে শ্রীলঙ্কার অবস্থা কতটা নাজুক, তার একটা চিত্র পাওয়া যেতে পারে জাতিসংঘ প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে। বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির (ডব্লিউএফপি) তথ্য অনুসারে, দেশটির প্রতি ছয় পরিবারের মধ্যে পাঁচ পরিবারের লোকজন প্রয়োজনের চেয়ে কম খাবার খাচ্ছে। এ ছাড়া বৃহৎ পরিসরে জ্বালানি সাশ্রয়ের জন্য বেশ কয়েক সপ্তাহ ধরে স্কুল ও কম প্রয়োজনীয় সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ রয়েছে। সরকারের কাছে বিদ্যুৎ কেনার অর্থ নেই। তেল আমদানি করতে না পেরে দীর্ঘ লোডশেডিং সহ্য করছে শ্রীলঙ্কান জনগণ। পেট্রোল ও ডিজেলের জন্য পাম্পে ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকছেন গাড়িচালকরা। সরকারি পরিসংখ্যান অনুযায়ী, শ্রীলঙ্কার মূল্যস্ম্ফীতি ৫০ শতাংশ ছাড়িয়েছে।

download 3 1

শ্রীলঙ্কার ছয়বারের প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে গতকাল বুধবার দেশটির নতুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন। ভঙ্গুর অর্থনীতি ও সহিংস রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে দেশটিকে সংকট থেকে প্রেসিডেন্ট রনিল কীভাবে উদ্ধার করেন, তাই এখন দেখার অপেক্ষায় অনেকে। প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব গ্রহণের পর দেওয়া বক্তব্যে রনিল বিক্রমাসিংহে সব রাজনৈতিক পক্ষকে মতভেদ ভুলে দেশকে সংকট থেকে বের করে আনতে তার সঙ্গে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

শ্রীলঙ্কার অর্থনীতির মূল ভিত্তি- পর্যটন ও বিদেশি রেমিট্যান্স। করোনা মহামারি ও আগের সরকারের গৃহীত নীতিগত ভুলের কারণে এই দুটি ভিত্তিও ভয়ংকর রকমভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। গত বছর গোটাবায়া রাজাপাকসে কৃষি কাজে ব্যবহূত রাসায়নিক আমদানি নিষিদ্ধ করেছিলেন। এতে চলতি বছর দেশের অর্ধেকেরও বেশি ফসল নষ্ট হয়েছে। অবস্থা উপলব্ধি করতে পেরে ছয় মাস পর রাসায়নিক আমদানির ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা উঠে গেলেও এখন পর্যন্ত দেশটিতে সারের আকাল চলছে। গত এপ্রিলে শ্রীলঙ্কা যখন নিজেকে দেউলিয়া ঘোষণা করে, তখন সরকারের ৫১ বিলিয়ন ডলারের বৈদেশিক ঋণ ছিল

পেশায় আইনজীবী রনিল ১৯৯৩ সালে প্রেসিডেন্ট রানাসিংহে প্রেমাদাসা হত্যাকাণ্ডের পর প্রথম প্রধানমন্ত্রিত্ব পেয়েছিলেন; কিন্তু মেয়াদ শেষ করতে পারেননি। এই পদে পরের তিন দশকে আসা-যাওয়ার মধ্যে থাকা ইউএনপির এই রাজনীতিক ক্ষমতায়, এমনকি বিরোধীদলীয় নেতা থাকাকালেও অর্থনৈতিক বিভিন্ন ইস্যুতে ভালো বোঝাপড়া ও দূরদর্শিতার প্রমাণ দিয়েছেন। তিনি পশ্চিমাপন্থি সংস্কারক হিসেবে বেশ পরিচিত। এরই মধ্যে বিক্রমাসিংহে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) সঙ্গে আলোচনা শুরু করেছেন। এ ছাড়া জাপান, চীন এবং ভারতের দ্বিপক্ষীয় সহায়তার ওপর জোর দিচ্ছেন, যাতে তাঁকে আরেকটি অর্থনৈতিক সংকটের মুখোমুখি হতে না হয়।

আইএমএফের সঙ্গে একটি চুক্তি করার আগেই বিক্রমাসিংহে নতুন বাজেট প্রস্তাব করতে চান। এর কারণ হিসেবে তিনি বলেছেন, গত বছরের প্রস্তাবিত বাজেট খুবই বিভ্রান্তিকর ছিল। ওই বাজেটে ঋণের পরিসংখ্যান কমিয়ে দেখানো হয়েছে। পাশাপাশি তিনি জরুরি আর্থিক সংস্কারের আহ্বান জানিয়েছেন। কৃচ্ছ্র সাধনের জন্য রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন শ্রীলঙ্কান এয়ারলাইন্সের মতো লোকসানে থাকা রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান বিক্রি করে দেওয়ার কথা বলেছেন রনিল বিক্রমাসিংহে। চলতি বছরের প্রথম চার মাসে প্রায় ৭০০ মিলিয়ন ডলারসহ দুই বিলিয়নেরও বেশি ঋণ করেছে শ্রীলঙ্কান এয়ারলাইন্স।

রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে বিস্তর মতপার্থক্য সত্ত্বেও চলমান অর্থনৈতিক সংকট থেকে দেশকে উদ্ধারে আইএমএফের সঙ্গে আলোচনায় সবাই ঐকমত্যে পৌঁছেছেন। যদিও কিছু রাজনীতিবিদ ভর্তুকি কমাতে এবং কর বাড়াতে আইএমএফের দেওয়া কঠোর ‘প্রেসক্রিপশনের’ তীব্র বিরোধিতা করেছেন; কিন্তু প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতারা একমত যে, আন্তর্জাতিক ঋণদাতার সঙ্গে শ্রীলঙ্কার এই চুক্তি করা উচিত। শ্রীলঙ্কার পার্লামেন্টে বর্তমানে কোনো রাজনৈতিক দলেরই স্পষ্ট সংখ্যাগরিষ্ঠতা নেই, যারা আইএমএফের সঙ্গে এই চুক্তি ভেস্তে দিতে পারে।এ ছাড়া আশা করা হচ্ছে, বিক্রমাসিংহে নতুন প্রধানমন্ত্রী নিয়োগ করবেন, যিনি তার মুক্তবাজার অর্থনৈতিক নীতি অনুসরণ করবেন এবং দেশকে নতুন সংস্কারের মধ্যে নিয়ে আসবেন।

বিশ্লেষকরা বলছেন, এতসব পদক্ষেপও বিক্রমাসিংহের টিকে যাওয়ার জন্য যথেষ্ট নয়। কারণ এপ্রিল মাসে শুরু হওয়া গণবিক্ষোভ এবং এই মাসের শুরুতে রাজাপাকসেকে তাঁর প্রাসাদ থেকে বহিস্কারের চূড়ান্ত পরিণতি বিক্রমাসিংহের জন্যও সমস্যা তৈরি করতে পারে। বিক্ষোভকারীরা রনিল বিক্রমাসিংহেকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে মেনে নিতে রাজি নয়। অনেকে বিশ্বাস করেন, ২০১৫ সালে রাজাপাকসে পরিবার যখন ক্ষমতা হারিয়েছিল, সে মময় তাদের সাহায্য করেছিলেন রনিল বিক্রমাসিংহে। আর এবার গোটাবায়া রাজাপাকসে নিজের ক্ষমতা বাঁচানোর চেষ্টায় মরিয়া হয়ে তাঁকে ফিরিয়ে আনেন প্রধানমন্ত্রীর পদে।

গোটাবায়ার পদত্যাগের পর ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব নিয়ে সেনাবাহিনী ও পুলিশকে বিক্ষোভ দমাতে ‘যা করা দরকার, তাই করার’ নির্দেশ দেন রনিল। বিশ্নেষকরা বলছেন, রাজাপাকসেরা সরে যাওয়ার পর বিক্ষোভের তীর তাঁর দিকে ঘুরে গেলেও রনিল কঠোর হওয়ার ইঙ্গিত দিয়ে পরিস্থিতি আপাতত সামাল দেওয়ার চেষ্টা করছেন। এরই মধ্যে বিক্ষোভকারীদের প্রতি জনসমর্থন কমে এসেছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় গণমাধ্যম। কলম্বোর একজন চিকিৎসক নাম প্রকাশ না করার শর্তে এএফপিকে বলেছেন, ‘রাজাপাকসে পরিবার থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য আমরা সংগ্রাম সমর্থন করেছিলাম। রাজাপাকসেরা চলে যাওয়ার পর এটি চালিয়ে যাওয়ার কোনো মানে নেই।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.


ফেসবুকে আমরা