বৃহস্পতিবার, ১৮ অগাস্ট ২০২২, ০৪:২৪ অপরাহ্ন
নিউজ বোর্ড :
কিছুটা স্বস্তি ডলারের বাজারে নাসা নতুন রকেট পাঠাচ্ছে চাঁদে বিশ্ববাজারে বেশিরভাগ পণ্যের দাম কমেছে ভরিতে ২২৭৫ টাকা কমছে স্বর্ণের দাম বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন চীনে ,তীব্র তাপপ্রবাহের মধ্যে লাখ লাখ মানুষ চীন সেনা পাঠাচ্ছে রাশিয়ায় মাত্র ১৫ শতাংশ,৩২০০ কোটি টাকায় টিভি স্বত্ব,বিক্রি করল বার্সেলোনা চমকে যাবেন,মেসি-রোনালদোর আয় জানলে,শুধু ইনস্টাগ্রাম থেকে জাসদের দাবি দোষীদের শাস্তি – স্বাধীনতাবিরোধী, দেশবিরোধী অপশক্তি, জঙ্গিগোষ্ঠী লাভবান না হয় সে বিবেচনার অনুরোধ : তথ্যমন্ত্রী ৩ মাসে দেশ পরিবর্তন,খালেদা জিয়ার জামিন হলে: জাফরুল্লাহ চা শ্রমিকদের মজুরি দেন,হুমকি নয় : টিআইবি আজ সিরিজ বোমা হামলার ১৭ বছর গুতেরেস ও এরদোয়ান ইউক্রেন যাচ্ছেন ভারতে ২৫ কিলোমিটার হেঁটে থানায় আত্মসমর্পণ,মাথা কাটা হাতে নিয়ে ক্রিমিয়ার সামরিক ঘাঁটি এড়িয়ে চলতে বলেছেন বেসামরিক নাগরিকদের-জেলেনস্কি ১৫৭ শিশুর মৃত্যু,জিম্বাবুয়েতে হামের প্রাদুর্ভাব মহড়ার প্রস্তুতির মধ্যেই ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ল উ. কোরিয়া এবার ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে কিনে নিচ্ছেন ইলন মাস্ক ম্যাচ বাতিল ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার
নোটিশ বোর্ড :
জরুরি ঘোষণাঃ আমাদের আই টি বিভাগের কারিগরি উন্নয়ন এর কাজ চলছে! এতে প্রচারে বিঘ্ন ঘটতে পারে সাময়িক অসুবিধার জন্য দুঃখিত। #Ndtvbdnewsroom “জরুরী আবশ্যক”বেসরকারী অনলাইন টেলিভিশন চ্যানেল ” নাগরিক দৃষ্টি টেলিভিশন ” এনডিটিভি তে এ উপস্থাপক উপস্থাপিকা, ভয়েস আটির্স,অফিস সহকারী পুরুষ – মহিলা এসএসসি,এইচএসসি,স্নাতক,ছবি সহ আবেদন করতে হবে এই মেইলে hr@ndtvbd.com * পরিক্ষামুলক সস্প্রচার * পরিক্ষামুলক সস্প্রচার * নাগরিক সাংবাদিকতার পথে ,আপনি হতে পারেন নাগরিক সাংবাদিক, দেরি না করে এখনি পাঠিয়ে দিন আপনার ছবি সহ বায়োডাটা এই মেইলে hr@ndtvbd.com, আপনারা যদি কোন সংবাদ বা নিউজ ক্লিপ পাঠাতে চান তাহলে এই মেইলে পাঠাতে পারেন news@ndtvbd.com– Head Of News–* পরিক্ষামুলক সস্প্রচার * পরিক্ষামুলক সস্প্রচার * পরিক্ষামুলক সস্প্রচার * পরিক্ষামুলক সস্প্রচার * পরিক্ষামুলক সস্প্রচার

ভারতে হিজাব পরে আসায় কলেজের দুই ছাত্রী কলেজের চূড়ান্ত পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেননি

Hijab contr

5 / 100

শুক্রবার কর্ণাটক বোর্ডের দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা শুরু হয়েছে। পরীক্ষার আগেই রাজ্যটির শিক্ষামন্ত্রী বি সি নাগেশ জানিয়ে দিয়েছিলেন, কোনো পরীক্ষার্থী হিজাব পরে এলে তাকে হলে ঢুকতে দেওয়া হবে না। সব শিক্ষার্থীকে পোশাকবিধি মেনেই পরীক্ষাকেন্দ্রে যেতে হবে। অনেক মুসলিম ছাত্রী পরে পরীক্ষা দিতে যাওয়ার অনুমতি চেয়ে শিক্ষামন্ত্রীর কাছে আবেদন করলেও সরকার তাতে সাড়া দেয়নি।ভারতে হিজাব নিয়ে বিতর্কের রেশ যেন থামছেই না। হিজাবের পক্ষে আদালতে পিটিশন দাখিল করা কর্ণাটকের দুই ছাত্রী এবার হিজাব পরে আসায় কলেজের চূড়ান্ত পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেননি। হলেই ঢুকতে দেওয়া হয়নি তাদের।

এরপরও আলিয়া আসাদি এবং রেশম নামের ওই দুই ছাত্রী হিজাব পরে পরীক্ষা দিতে যান। তারা হিজাবপন্থী আন্দোলনের প্রথম সারির মুখ বলে জানা গেছে।

তারা আজ পরীক্ষাকেন্দ্রে হাজির হলে পর্যবেক্ষকরা জানান, পোশাকবিধি না মানলে পরীক্ষা দিতে দেওয়া হবে না। প্রায় ৪০-৪৫ মিনিট ওই দুই পরীক্ষার্থী কর্তৃপক্ষকে বোঝানোর চেষ্টা করেন। তাতেও মন গলেনি। শেষ পর্যন্ত নীরবে পরীক্ষাকেন্দ্র ত্যাগ করে ফিরে যান তারা।

কর্ণাটকের প্রাক-বিশ্ববিদ্যালয় বোর্ডের অধীনে দ্বাদশ শ্রেণির বোর্ড পরীক্ষা শুরু হয়েছে এবং চলবে ১৮ মে পর্যন্ত। পরীক্ষা চলাকালে শিক্ষার্থীদের পোশাক নিয়ে এক হাজার ৭৬টি কেন্দ্রের কোথাও যেন কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা না ঘটে তার জন্য কঠোর নিরাপত্তার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

এদিকে রাজ্য শিক্ষামন্ত্রী বিসি নাগেশ জানিয়েছেন, হিজাব পরা কোনো শিক্ষার্থীকে পরীক্ষায় অংশ নিতে দেওয়া হবে না।

হিজাবের পক্ষে আন্দোলনের ফ্রন্টলাইনারদের একজন ১৭ বছর বয়সী আলিয়া আসাদি। গত সপ্তাহে রাজ্য মুখ্যমন্ত্রী বাসবরাজ বোম্মাইয়ের কাছে আবেদন জানিয়ে এই ছাত্রী বলেন, আমাদের ভবিষ্য নষ্ট হওয়া বন্ধ করার একটা সুযোগ মুখ্যমন্ত্রীর সামনে এখনো আছে।

রাজ্য পর্যায়ের কারাটে চ্যাম্পিয়ন আলিয়া তার আবেদনে আরও জানান, প্রাক-বিশ্ববিদ্যালয় পরীক্ষায় অংশ নিতে ইচ্ছুক বহু শিক্ষার্থী শুধু হিজাব নিষিদ্ধের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হবে, তাই তাদের হিজাব পরেই পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার সুযোগ দিতে মুখ্যমন্ত্রী একটা সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।

হিজাব পরা বাধ্যতামূলক কোনো ধর্মীয় অনুশীলন নয়। বিষয়টি নিয়ে দীর্ঘদিন অপেক্ষার পর গত ১৫ মার্চ ভারতের কর্ণাটক রাজ্যের উচ্চ আদালত এ রায় দেন।

এর আগে গত ১১ ফেব্রুয়ারি, হাইকোর্টের দেওয়া অন্তর্বর্তী রায়কে চ্যালেঞ্জ করে দ্রুত শুনানির আবেদন জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন কয়েকজন আন্দোলনকারী। কিন্তু সুপ্রিম কোর্ট মামলাটি গ্রহণ করতে অসম্মত হয়। জানানো হয় হাইকোর্টে মামলা চলছে। এ অবস্থায় তাতে হস্তক্ষেপের কোনো প্রয়োজন নেই।

গত ১০ ফেব্রুয়ারি, অন্তর্বর্তী রায়ে হাইকোর্ট জানিয়েছিল, যতদিন না পর্যন্ত চূড়ান্ত রায় দেওয়া হচ্ছে, ততদিন শিক্ষার্থীরা গেরুয়া উত্তরীয়, হিজাব পরে এবং ধর্মীয় পতাকা বা ওই জাতীয় কিছু নিয়ে ক্লাসরুমে প্রবেশ করতে পারবে না।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.


ফেসবুকে আমরা