বুধবার, ১৭ অগাস্ট ২০২২, ০৩:৩৩ পূর্বাহ্ন
নিউজ বোর্ড :
প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ, ঠিকাদার কোম্পানিকে ব্ল্যাক লিস্ট করার, উত্তরায় গার্ডার দুর্ঘটনা মোহাম্মদ আলী মিয়া সিআইডি প্রধান হলেন একটু বাড়াবাড়ি হয়েছে বরগুনার ঘটনাটি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কামাল বাম জোটের অর্ধদিবস হরতালের ডাক স্বাধীনতা দিবসে মোদি,২৫ বছরে উন্নত দেশ হবে ভারত, মিয়ানমারের ক্ষমতাচ্যুত নেত্রী অং সান সু চিকে ছয় বছর কারাদণ্ড দিয়েছেন জান্তা সরকারের আদালত ফিফা নিষিদ্ধ করল ভারতকে ফায়ার সার্ভিসের ১০টি ইউনিট নিয়ন্ত্রণে,চকবাজারে পলিথিন কারখানায় আগুন বিআরটি’র গার্ডার পড়ে উত্তরায় নিহত ৪ সেই ভয়াল রাতে,যা ঘটেছিল হারানো শোককে শক্তিতে রূপান্তর করার আহ্বান রাষ্ট্রপতির প্রধান বিচারপতির শ্রদ্ধা,জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে সংগ্রাম করে যাচ্ছেন শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নপূরণে-ওবায়দুল কাদের দেশে-বিদেশে ষড়যন্ত্র চলছে,বাংলাদেশকে নিয়ে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী ছুঁতে পারত বঙ্গবন্ধুকে সবাই ধরতে পারত: পরিকল্পনামন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ও আদর্শের মৃত্যু ঘাতকচক্র ঘটাতে পারেনি: প্রধানমন্ত্রী বাঙালি জাতির জন্য বেদনাবিধুর দিন ১৫ আগস্ট বিমানবন্দরে ফুল দিয়ে বরণের প্রস্তুতি, দেশে ফিরছেন শাকিব সব মসজিদে শোক দিবসে বিশেষ দোয়া-মোনাজাত
নোটিশ বোর্ড :
১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস, সে উপলক্ষে এনডিটিভির বিশেষ আয়োজন টেলিফিল্ম “৭৫ এর ১৫ আগষ্ট” দেখবেন আজ রাত ৯ -২০ মিনিটে, শুধু মাএ নাগরিক দৃষ্টি টেলিভিশন এর পর্দায়।। জরুরি ঘোষণাঃ আমাদের আই টি বিভাগের কারিগরি উন্নয়ন এর কাজ চলছে! এতে প্রচারে বিঘ্ন ঘটতে পারে সাময়িক অসুবিধার জন্য দুঃখিত। #Ndtvbdnewsroom “জরুরী আবশ্যক”বেসরকারী অনলাইন টেলিভিশন চ্যানেল ” নাগরিক দৃষ্টি টেলিভিশন ” এনডিটিভি তে এ উপস্থাপক উপস্থাপিকা, ভয়েস আটির্স,অফিস সহকারী পুরুষ – মহিলা এসএসসি,এইচএসসি,স্নাতক,ছবি সহ আবেদন করতে হবে এই মেইলে hr@ndtvbd.com * পরিক্ষামুলক সস্প্রচার * পরিক্ষামুলক সস্প্রচার * নাগরিক সাংবাদিকতার পথে ,আপনি হতে পারেন নাগরিক সাংবাদিক, দেরি না করে এখনি পাঠিয়ে দিন আপনার ছবি সহ বায়োডাটা এই মেইলে hr@ndtvbd.com, আপনারা যদি কোন সংবাদ বা নিউজ ক্লিপ পাঠাতে চান তাহলে এই মেইলে পাঠাতে পারেন news@ndtvbd.com– Head Of News–* পরিক্ষামুলক সস্প্রচার * পরিক্ষামুলক সস্প্রচার * পরিক্ষামুলক সস্প্রচার * পরিক্ষামুলক সস্প্রচার * পরিক্ষামুলক সস্প্রচার

হাসপাতাল থেকে বাসায় খালেদা জিয়া নেতাকর্মীদের মাঝে স্বস্তি

whatsap

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া হাসপাতালে দীর্ঘ চিকিৎসা শেষে গুলশানের ভাড়া বাসা ফিরোজায় ফিরেছেন। তার অনেকটা স্থিতিশীল শারীরিক অবস্থায় দলটির নেতাকর্মীদের মধ্যে স্বস্তি ফিরে এসেছে। একই সঙ্গে ডাক্তারের ‘ফের অসুস্থতার আশঙ্কা’ তাদের অস্বস্তিও কাটাতে পারছে না। তবে সুষ্ঠু চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে পারলে খালেদা জিয়া আবারও দলের নেতৃত্ব দেওয়ার মতো অবস্থায় ফিরে আসতে পারবেন। দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে তাদের এমন ভাবনার কথাই জানা গেল।
বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সমকালকে বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে ওঠেননি। তবে তার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল। করোনা সংক্রমণের কারণে হাসপাতালে স্বাস্থ্যঝুঁকির কথা বিবেচনায় নিয়ে তাকে বাসায় নেওয়া হয়েছে। তবে উন্নত ও স্থায়ী চিকিৎসার জন্য তাকে দ্রুত বিদেশে নেওয়া প্রয়োজন বলে মেডিকেল বোর্ড মতামত দিয়েছে।
খালেদা জিয়া হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরছেন- এমন সংবাদে মঙ্গলবার দুপুরের পর থেকেই দলের নির্দেশনার বাইরে গিয়ে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতাল এলাকায় ভিড় করতে থাকেন নেতাকর্মীরা। সন্ধ্যার দিকে তা আরও বেড়ে যায়। সাড়ে ৭টার দিকে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র নিয়ে গুলশানের বাসভবনের উদ্দেশে রওনা হওয়ার সময়ে তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের ভিড় সামলাতে হিমশিম খেতে হয় খালেদা জিয়ার নিরাপত্তা বাহিনীকে। তার বাসভবনের সামনেও জড়ো হতে থাকেন নেতাকর্মীরা। হাসপাতাল থেকে বাসভবন পর্যন্ত রাস্তাজুড়ে নেতাকর্মীদের বহর তার গাড়িবহরকে এগিয়ে নিয়ে আসে। এ সময়ে স্লোগানে-স্লোগানে পুরো রাস্তা প্রকম্পিত করতে থাকেন নেতাকর্মীরা। শুধু তাই নয়, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন নেতাকর্মীরা। নেতাকর্মীরা জানান, খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে সব সময় একটা উদ্বেগজনক পরিস্থিতিতে ছিলেন। তার রোগমুক্তি ও সুস্থতা কামনায় রাজনৈতিক কর্মসূচির পাশাপাশি সারাদেশে দোয়া মিলাদ, প্রার্থনার মতো ধর্মীয় কর্মসূচি পালন এখনও অব্যাহত রেখেছেন তারা।
স্বেচ্ছাসেবক দলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, খালেদা জিয়া শুধু তাদের দলীয় প্রধান নন, তাদের অভিভাবক। তিনি শুধু বিএনপির নেত্রী নন, পুরো দেশের গণতন্ত্রের নেত্রী। তাই তার অসুস্থতায় পুরো দেশবাসী উদ্বেগের মধ্যে রয়েছেন। তিনি পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠলে তার নেতৃত্বেই দেশ ও জাতি এই অগণতান্ত্রিক সরকারের অপশাসন থেকে মুক্ত হতে পারবে।
লিভার সিরোসিসে আক্রান্ত খালেদা জিয়াকে গত বছরের ১৩ নভেম্বর রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর থেকেই প্রতিনিয়ত তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটতে থাকে। চিকিৎসক ও বিএনপির শীর্ষ মহল থেকে দাবি করা হয়, খালেদা জিয়া জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে আছেন। বড় ধরনের রক্তক্ষরণের ঘটনা ফের ঘটলে তার জীবন সংশয়ও ঘটতে পারে বলে জানানো হয় তখন।
খালেদা জিয়ার শারীরিক এমন অবস্থায় চিকিৎসকদের সিদ্ধান্তে বিদেশ থেকে ক্যামেরাযুক্ত ক্যাপসুল আনা হয়। এ ক্যাপসুল আনিয়ে খালেদা জিয়ার ক্যাপসুল এন্ডোস্কপি করা হয়। এতে রক্তক্ষরণের উৎস হিসেবে তার ক্ষুদ্রান্তের নিচে একটি ক্ষত শনাক্ত করা সম্ভব হয়। এন্ডোস্কপির মাধ্যমে ব্যান্ড লাইগেশন করে সে ক্ষতটি বন্ধ করা সম্ভব হয়েছে। এতে বিএনপি চেয়ারপারসনের রক্তক্ষরণ আপাতত বন্ধ হয়েছে। পরে এক সপ্তাহ সিসিইউতে পর্যবেক্ষণ শেষে গত ৯ জানুয়ারি কেবিনে স্থানান্তর করা হয় খালেদা জিয়াকে।
খালেদা জিয়ার এই দীর্ঘ চিকিৎসার প্রতিটি মুহূর্তে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় কেটেছে দলটির সব পর্যায়ের নেতাকর্মীর।
যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু বলেন, খালেদা জিয়া এখনও পুরোপুরি সুস্থ নন। এই অবৈধ সরকার দেশনেত্রীকে অন্যায়ভাবে সাজা দিয়ে রেখেছে। আমরা আগে তার নিঃশর্ত মুক্তি চাই। তার মুক্তির জন্য আমাদের আন্দোলন চলছে। দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নেতৃত্বে দেশের গণতন্ত্র ও গণতন্ত্রের নেত্রীর মুক্তির যে আন্দোলন শুরু হয়েছে, তা চূড়ান্ত বিজয় পর্যন্ত চলমান থাকবে।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.


ফেসবুকে আমরা