মঙ্গলবার, ০৯ অগাস্ট ২০২২, ০২:২৬ অপরাহ্ন
নিউজ বোর্ড :
শেয়ারট্রিপ পেল স্টার্টআপ থেকে ৫ কোটি ডলার বিনিয়োগ নারীদের বঙ্গমাতার জীবনাদর্শ অনুসরণ করতে বললেন প্রধানমন্ত্রী তেলের মূল্য বিশ্ব বাজারে কমলে দেশেও সমন্বয় করা হবে : তথ্যমন্ত্রী বাড়ানো হতে পারে ট্রেনের ভাড়াও : রেলমন্ত্রী ১ অক্টোবর থেকে,পণ্য বিক্রি বন্ধ হচ্ছে ডিজিটাল প্লাটফর্ম ফেইসবুক লাইভে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে লঞ্চ মালিকদের সাথে বৈঠক,লঞ্চের ভাড়া বাড়ানোর আবেদন ঢাকার দুই মেয়র মন্ত্রী পদমর্যাদা পাচ্ছেন ‘আপডেট অফ ভাসকুলার সার্জারি’বিএসএমএমইউয়ে বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত ৫ নারী পেলেন বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব পদক তরুণ প্রজন্মের প্রতি,বঙ্গমাতার আদর্শ ধারণের আহ্বান রাষ্ট্রপতির দৃঢ়চেতা-বলিষ্ঠ চরিত্রের অধিকারী ছিলেন,ফজিলাতুন নেছা মুজিব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারি কর্মসূচি জাতীয় শোক দিবসে বঙ্গমাতার ৯২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের শ্রদ্ধা নিবেদন বিএনপি নতুন ,রাজপথের পুরাতন খেলোয়াড় আমরা-ওবায়দুল কাদের সরকার দেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্র বানিয়েছে : মির্জা ফখরুল শ্রীলঙ্কায় ডিজেল-গ্যাসের পর নিত্যপণ্যের দাম কমালো ‘চীনের স্বপ্ন’ ছিল পেলোসি : ট্রাম্প জগদীপ ধনকড় ভারতের উপ-রাষ্ট্রপতি হলেন ৩টি টি-টোয়েন্টির ২টি জিতেছে জিম্বাবুয়ে, ১টি বাংলাদেশ। শতকোটি টাকার ‘‌দিন দ্য ডে’ কথা নাকি নির্মাণ নাকি অনন্ত-বর্ষা নিয়ে চলমান তান্ডব !
নোটিশ বোর্ড :
জরুরি ঘোষণাঃ আমাদের আই টি বিভাগের কারিগরি উন্নয়ন এর কাজ চলছে! এতে প্রচারে বিঘ্ন ঘটতে পারে সাময়িক অসুবিধার জন্য দুঃখিত। #Ndtvbdnewsroom “জরুরী আবশ্যক”বেসরকারী অনলাইন টেলিভিশন চ্যানেল ” নাগরিক দৃষ্টি টেলিভিশন ” এনডিটিভি তে এ উপস্থাপক উপস্থাপিকা, ভয়েস আটির্স,অফিস সহকারী পুরুষ – মহিলা এসএসসি,এইচএসসি,স্নাতক,ছবি সহ আবেদন করতে হবে এই মেইলে hr@ndtvbd.com * পরিক্ষামুলক সস্প্রচার * পরিক্ষামুলক সস্প্রচার * নাগরিক সাংবাদিকতার পথে ,আপনি হতে পারেন নাগরিক সাংবাদিক, দেরি না করে এখনি পাঠিয়ে দিন আপনার ছবি সহ বায়োডাটা এই মেইলে hr@ndtvbd.com, আপনারা যদি কোন সংবাদ বা নিউজ ক্লিপ পাঠাতে চান তাহলে এই মেইলে পাঠাতে পারেন news@ndtvbd.com– Head Of News–* পরিক্ষামুলক সস্প্রচার * পরিক্ষামুলক সস্প্রচার * পরিক্ষামুলক সস্প্রচার * পরিক্ষামুলক সস্প্রচার * পরিক্ষামুলক সস্প্রচার

৬০ শতাংশ কিশোর-কিশোরী মানসিক চাপে ভুগছে

index 21

বাংলাদেশের ১৩-১৯ বছর বয়সী শহুরে ছেলে-মেয়েদের ৬০ শতাংশের বেশি মাঝারি থেকে তীব্র মানসিক চাপে ভুগছে। মানসিক চাপের ফলে তাদের শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্যের ব্যাপক ক্ষতি হয়। এই সব কিশোর-কিশোরীদের একটি বড় অংশ স্থূলতা ও বিষণ্ণতায় ভোগে।

সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্রেস্ট ফিডিং ফাউন্ডেশন, পাবলিক হেলথ ইন্সটিটিউট, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়সহ কয়েকটি সংস্থার করা যৌথ গবেষণায় এই তথ্য জানা গেছে। গবেষণাটি ১৩ থেকে ১৯ বছর বয়সী সাড়ে চার হাজারের বেশি কিশোর-কিশোরীর সাক্ষাৎকারের ওপর ভিত্তি করে পরিচালনা করা হয়েছে। খবর বিবিসির।

গবেষণায় দেখা গেছে, সন্তানদের এ ধরনের মানসিক চাপের ব্যাপারে পরিবারে বা অভিভাবকদের মধ্যে সচেতনতা খুবই কম। এমনকি মানসিক চাপ সামলাতে পরিবার ও স্কুলের সহায়তা খুবই কম পায় তারা। অপরদিকে শহুরে ছেলে-মেয়েরা নিয়মিত খেলাধুলা ও কায়িক পরিশ্রমের কাজ করে মাত্র আড়াই শতাংশের কিছু বেশি।

গবেষণার একজন সহ-গবেষক আমব্রিনা ফেরদৌস বলেন, জরিপটি মহামারি শুরুর আগে ২০১৯ সালে ঢাকাসহ দেশের আটটি বিভাগীয় শহরে পরিচালনা করা হয়েছে। বাংলাদেশ মেডিকেল রিসার্চ কাউন্সিল বিএমআরসি গবেষণা নিবন্ধটি অনুমোদন দিয়েছে।

গবেষণায় বলা হয়, বয়ঃসন্ধিকালে সারা পৃথিবীতেই ছেলে-মেয়েরা নানা রকম মানসিক পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে যায়। আর হরমোনের নানা পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে যুক্ত হয় পরিবার ও সমাজের প্রত্যাশার চাপ। ভালো স্কুলে শিক্ষার সুযোগ পাওয়া, ভালো ফলসহ শিক্ষা কার্যক্রমে সাফল্য এমনতর নানাবিধ চাপ তৈরি হয় তাদের ওপর।

গবেষণায় দেখা গেছে, পরীক্ষার রেজাল্ট, বাবা-মায়েদের প্রত্যাশা ও স্কুলে পড়াশোনার চাপ থেকে তারা সবচেয়ে বেশি স্ট্রেস ফিল করে। সেই সঙ্গে ভবিষ্যতে কোথায় পড়তে যাবে, কী করবে এ সব নিয়ে অনিশ্চয়তায় ভোগে ছেলেমেয়েরা। আবার নিজেদের শারীরিক অবয়ব মানে তাদের কেমন দেখাচ্ছে, তা নিয়েও এ বয়সী ছেলেমেয়েদের মধ্যে একটা স্ট্রেস তৈরি হয়।

সহ-গবেষক আমব্রিনা ফেরদৌস বলেন, গবেষণায় আমরা দেখতে পেয়েছি কিশোর বয়সী ছেলে-মেয়েদের সঙ্গে মা-বাবার মানসিক দূরত্ব, নাগরিক জীবনে একক পরিবার কাঠামোর কারণে একাকীত্ব, স্কুলে বা অবসর সময়ে সমবয়সীদের সঙ্গে দ্বন্দ্ব, এসব কারণে মানসিক চাপ সৃষ্টি হয়। মানসিক চাপের কারণে অল্পবয়সী ছেলে-মেয়েদের জীবনে দীর্ঘমেয়াদি প্রভাব পড়ে। প্রায়শই তারা নিজেদের সমস্যার কথা তারা পরিবারের সঙ্গে শেয়ার করতে পারে না।

গবেষণায় পাওয়া তথ্যে দেখা গেছে, শহুরে কিশোর-কিশোরীর ২৬ শতাংশের বেশি ওজন স্বাভাবিকের চাইতে বেশি। এ ছাড়া ৩০ শতাংশের বেশি ছেলে-মেয়ে দিনের বড় সময়টি বাড়ির ভেতরেই থাকে। শহর এলাকায় খোলা জায়গার অভাব এবং ইনডোর গেমের প্রতি আকর্ষণের কারণে ওবেসিটির সমস্যা দিন দিন বাড়ছে। অনেকেই না বুঝে কুসংসর্গে পড়ে বিপথগামী হয়, কেউ মাদকাসক্তিসহ নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়ে। কেউবা আবার আত্মহননের পথও বেছে নেয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.


ফেসবুকে আমরা