" /> বিদেশি চ্যানেলের ক্লিন ফিড নিশ্চিত হবে কী ? – নাগরিক দৃষ্টি টেলিভিশন
শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩, ০৫:০৩ অপরাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদ
খালেদা, তারেককে নিয়ে সময় টিভির প্রতিবেদন সম্পর্কে যা বললেন ফখরুল বিদ্যুতের দাম প্রতি মাসেই সমন্বয় করা হবে : প্রতিমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী বিশ্বব্যাপী উচ্চশিক্ষার সুযোগ তৈরি করে দিয়েছেন : নাছিম বিআইডব্লিউটিএ’র অনুমোদন ছাড়া কোনো সেতু নয় : নৌ প্রতিমন্ত্রী সিলেটে আন্তর্জাতিক কাস্টমস দিবস- ২০২৩ উদযাপন সাংবাদিক আফতাব হত্যা : ৯ বছর ছদ্মবেশে ফাঁসির আসামি, অবশেষে গ্রেপ্তার বিদ্যার দেবী শ্রী শ্রী সরস্বতী পূজা সাংবাদিক আফতাব হত্যা : ৯ বছর ছদ্মবেশে ফাঁসির আসামি, অবশেষে গ্রেপ্তার বার বার আদালতে আনা নেয়ায় অসুস্থ হয়েছেন রিজভী : ইউট্যাব ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ গড়ার মূল হাতিয়ার হবে ডিজিটাল সংযোগ : প্রধানমন্ত্রী

বিদেশি চ্যানেলের ক্লিন ফিড নিশ্চিত হবে কী ?

দেশের বাজারে চ্যানেলগুলোর এই বাণিজ্যিক উদ্দেশ্য বাস্তবায়নে সুযোগ আছে বটে। কিন্তু বিদেশে? নীতিমালা আছে, চ্যানেলগুলো বিদেশে সম্প্রচার হবে বিজ্ঞাপন ছাড়া বা ‘ফিড ক্লিন’ হয়ে। এক্ষেত্রে আবার প্রশ্ন আসতে পারে, বিদেশের বাজারে সম্প্রচার হলে এই ফিড ক্লিন করবেটা কে? ফিড ক্লিন নিশ্চিত হয় কীভাবে?

একেকটি চ্যানেলে যা সম্প্রচার করা হয়, সাধারণত তাকে ফিড বলা হয়। ফিডের মূল কন্টেন্টের সঙ্গে আবার অতিরিক্ত টেক্সট, ছবি, ব্যাকগ্রাউন্ড বা বিজ্ঞাপন ভিডিও সম্প্রচার করা হয়, তা-ও এই ফিডের অন্তর্ভুক্ত; যা সাধারণত বাণিজ্যিক উদ্দেশে করা হয়। এক্ষেত্রেই প্রশ্ন আসে ক্লিন ফিডের। অর্থাৎ ক্ষেত্র বিশেষে বিজ্ঞাপনমুক্ত কন্টেন্ট সম্প্রচার।

বিদেশি চ্যানেলগুলো এই বাণিজ্যিক উদ্দেশ্য এতদিন ধরে হাসিল করে আসছিল বাংলাদেশে। এ নিয়ে অনেকদিন ধরে কথাও হচ্ছিল। অবশেষে শুক্রবার থেকে ক্লিন ফিড বিহীন সম্প্রচার বন্ধ করে দিয়েছে সরকার। তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ ক্লিন ফিড বা বিজ্ঞাপনমুক্ত ছাড়া বিদেশি চ্যানেল চালাতে দেওয়া হবে না বলে জানিয়ে দিয়েছেন।

এ হিসেবে দেশে দুইদিন ধরে সম্প্রচার বন্ধ রয়েছে সব বিদেশি চ্যানেলের। সংবাদভিত্তিক, বিনোদনভিত্তিক বা শিক্ষামূলক সব ধরনের বিদেশি চ্যানেলের সম্প্রচার নেই বাংলাদেশে। কিন্তু এভাবে কতদিন, ক্লিন ফিড কবে হবে, করবেটা কে, সবাই এর সমাধান জানতে যাচ্ছে।

দেশে বিদেশি কোনো চ্যানেল বিজ্ঞাপনমুক্ত আছে কি-না, জানা নেই। অর্থাৎ সবগুলো চ্যানেল ক্লিন ফিড করতে হবে। এ ছাড়া সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আর সম্প্রচারে আসছে না। এক্ষেত্রে সরকার বলছে, তাদের করণীয় কিছু নেই। বিজ্ঞাপনসহ চ্যানেলের সম্প্রচার দেশের জন্য ক্ষতি। দেশীয় চ্যানেল ক্ষতিগ্রস্ত হয়। দেশীয় চ্যানেলে বিজ্ঞাপন এলে সরকার ট্যাক্স পায়। সেক্ষেত্রে সরকারও লাভবান হয়। অন্যদিকে কেবল অপারেটরেরা বলছেন, বিজ্ঞাপনমুক্ত বা ক্লিন ফিড করে চ্যানেলের সম্প্রচার করা তাদের পক্ষে কোনোভাবেই সম্ভব নয়। বিদেশি চ্যানেল ক্লিন ফিড হয়ে সম্প্রচার হবে, এটা স্বাভাবিক ধারণা। পার্শ্ববর্তী দেশগুলোতেও বিদেশি চ্যানেল বিজ্ঞাপনমুক্ত হয়ে সম্প্রচার হয়; যেখানে ক্লিন ফিডের কারণে বাংলাদেশে সম্প্রচারই বন্ধ হয়ে আছে।

ndtvbd/news desk


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমরা